Coronavirus in chickens

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস! প্রাণঘাতী এই করোনাভাইরাস এবার মুরগির দেহেও শনাক্ত হয়েছে। ব্রাজিল থেকে আমদানি করা হিমায়িত মুরগির মাংস পরীক্ষা করে করোনা পেয়েছে চীন।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) এ কথা জানিয়েছে চীনের শেনজেন সিটি কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে বেইজিংয়ে ব্রাজিল দূতাবাসের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

শেনজেন সিটি রোগ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ জানায়, সম্প্রতি ব্রাজিল থেকে আমদানি করা হিমায়িত মুরগির নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হয়।

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস!

গত জুন থেকে আমদানি করা মাংস ও সামুদ্রিক খাবারে রুটিন চেকের অংশ হিসেবে এ পরীক্ষা করা হয়।

পরীক্ষায় হিমায়িত মুরগির পাখনায় করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়।

কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, এ ঘটনার পর ওই মুরগির সংস্পর্শে যারা এসেছে, তাদের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

তারা সবাই অবশ্য করোনা নেগেটিভ শনাক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ, হিমায়িত মুরগির মাংসের সংস্পর্শে এসে কেউ সংক্রমিত হননি।

তবে সিটির মহামারি প্রতিরোধ ও রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বলেছে, আমদানি করা যেকোনো মাংস বা সামুদ্রিক খাদ্যপণ্যের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের অবশ্যই সাবধান থাকতে হবে।

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস!

করোনাকালীন সংক্রমণ ঝুঁকি কমাতেই সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

প্রসঙ্গত, চীনের উহান থেকে মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে সারাবিশ্বে।

আশঙ্কা করা হয়, উহানের হুনান সামুদ্রিক খাদ্যপণ্য ও মাংসের বাজার থেকেই মানুষের মধ্যে সংক্রমিত হয়েছে ওই ভাইরাস।

সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত ২ কোটির অধিক মানুষ করোনায় আক্রান্ত ও প্রায় সাড়ে ৭ লাখ মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

সবচেয়ে দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস!

এখনো প্রতিদিন করোনাভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। এখনো স্বাভাবিক হয়নি করণা সংক্রমণ।

তবুও অর্থনীতি কথা চিন্তা করে অনেক দেশ তাদের দেশে থাকা লকডাউন তুলে দিয়েছে। যদিও তাদের এই সিদ্ধান্তের কারণে করোনাভাইরাস আরো ছড়াতে পারে তবুও অর্থনৈতিক দিক থেকে তারা পিছিয়ে থাকতে চায় না

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস!

তাই বিশ্বের সব দেশকে কোনকিছু আমদানি রপ্তানি করার সময় অবশ্য করোনাভাইরাস পরীক্ষা করে আমদানি রপ্তানি করা উচিত।

ভাগ্য ভালো ছিল চীন তাদের মুরগীগুলোর করোনাভাইরাস পরীক্ষা করেছে।

যদি তারা আজ মুরগীগুলোর করোনাভাইরাস পরীক্ষা না করতো তাহলে হয়তো তাদের দেশে আবারও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হতো।

আমরা সবাই জানতে পারছি যে আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে করোনা সংক্রমণ অনেক বেশি, প্রতিদিন তাদের হাজার হাজার মানুষ আক্রমণ হয় এবং অনেকে মারাও যায় ।

তাই ভারত থেকে যখনই আমাদের দেশে কোন কিছু আমদানি করা হবে তখন যেন তা ভালোভাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়।

মুরগিকেও ছড়াল না করোনাভাইরাস!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *